ভারতকে নাৎসিবাদের দিকে এগিয়ে নিচ্ছেন মোদি: অভিজিৎ


ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ভারতকে জার্মান স্বৈরশাসক অ্যাডলফ হিটলারের জার্মানিতে পরিণত করছেন বলে মন্তব্য করেছেন দেশটির নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অভিজিৎ ব্যানার্জি। তিনি বলেন, বর্তমান পরিস্থিতি দেখে মনে হচ্ছে ভারত এখন হিটলারের নাৎসিবাদী জার্মানি হওয়ার পথে এগিয়ে যাচ্ছে। দিল্লির জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ের (জেএনইউ) মুখোশধারীদের হামলার ঘটনার নিন্দা জানাতে গিয়ে সোমবার তিনি এসব কথা বলেন।

রবিবার সন্ধ্যায় জেএনইউতে প্রবেশ করে হামলা চালায় একদল মুখোশধারী। লাঠি ও পাথর হাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের চত্বরে ত্রাসের সঞ্চার করে তারা। হামলায় অন্তত ৩৪ জন আহত হয়েছে। এদের মধ্যে ১৯ শিক্ষার্থী ও ৫ জন শিক্ষক। ঘটনার পর সংবাদমাধ্যমের অনুসন্ধান থেকে জানা যায় বিজেপি-সংশ্লিষ্ট হিন্দুত্ববাদী ছাত্র সংগঠন এবিভিপি এই হামলা চালিয়েছে।

হামলার ঘটনায় স্তম্ভিত নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অভিজিৎ ব্যানার্জি বলেন, তিনি বলেন, নরেন্দ্র মোদি সরকারের উচিত সত্য সামনে আনা। আমার মনে হয় গোটা বিশ্বের সামনে ভারতের ভাবমূর্তি নিয়ে ভাবার সময় এসে গেছে। আমরা যেন জার্মানির নাৎসি জমানার প্রতিধ্বনি শুনতে পারছি ভারতে বসে।

হামলায় আহত ছাত্রছাত্রীদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করেছেন নোবেলজয়ী এ বাঙালি।

জেএনইউ আর অভিজিতের সম্পর্কটা আসলে এমনই। শুধু উচ্চশিক্ষাই নয়, এই বিশ্ববিদ্যালয় তো তার জীবনই অনেকটা গড়ে দিয়েছে। তাই নোবেলজয়ের পর দেশে পা দিয়েই ছুটেছিলেন প্রিয় ক্যাম্পাসে। টিটি খেলে, আড্ডা দিয়ে, নতুন প্রজন্মের ছাত্রছাত্রীদের সঙ্গে ছবি তুলে সময় কাটিয়েছিলেন। সেই ক্যাম্পাসের এমন রক্তাক্ত ছবি তাকে আঘাত করবেই। জেএনইউ-তে অধ্যয়নকালে ছাত্র রাজনীতিতে সক্রিয় ছিলেন অভিজিৎ। আন্দোলনে শামিল হয়ে জেলও খাটতে হয়েছে। ফলে ছাত্র রাজনীতির এপিঠ–ওপিঠ তার বেশ ভালোভাবেই জানা।
উল্লেখ্য, হিটলার আর তার নাৎসি ভাবাদর্শের পরিণতি গোটা বিশ্বের ইতিহাসে তুলনাহীন৷ যুদ্ধ-সংঘর্ষ ছাড়াই ঠাণ্ডা মাথায় কনসেন্ট্রেশন ক্যাম্পে সুপরিকল্পিতভাবে ৬০ লক্ষ মানুষের নিধনযজ্ঞের ঘটনা এর আগে অথবা পরে ঘটেনি৷ ইহুদি জাতিকে নিশ্চিহ্ন করে দিতে হিটলার ‘কনসেনট্রেশন ক্যাম্প’ তৈরি করিয়েছিলেন, যেখানে ‘দক্ষতার সঙ্গে’ গ্যাস চেম্বারে মানুষ মারার ব্যবস্থা ছিল৷