৬৮ ঘণ্টা পরও ১০০ ফুট গভীর গর্ত থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করা যায়নি


 

নলকূপের বসানোর জন্য অন্তত তিনশো ফুট গভীর গর্ত খোঁড়া হয়েছিল। শুক্রবার বিকেলে খেলতে খেলতে সেই গর্তে পড়ে যায় দুই বছর বয়সী শিশু সুজিত উইলসন। গর্তে পড়ে যাওয়ার এক ঘণ্টার মধ্যেই খবর পেয়ে তাকে উদ্ধারে অভিযান শুরু হলেও শিশুটিকে এখানো উদ্ধার করা যায়নি।

শিশুটি গর্তটির ৮৮ ফুট গভীরতায় আটকে আছে। ঘটনাস্থলে রয়েছেন তামিলনাড়ুর স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ বিষয়ক মন্ত্রী সি বিজয়বাস্কার ও পর্যটনমন্ত্রী এন নাগার্জুন। শুক্রবার সুজিত নামের শিশুটির গর্তে পড়ে যাওয়ার এক ঘণ্টার মধ্যেই খবর পেয়ে তাকে উদ্ধারে সেখানে পৌঁছান দমকল বাহিনীর সদস্যরা।

শিশু সুজতিকে উদ্ধারে পরিচালিত অভিযানে দমকল বাহিনীর সঙ্গে যোগ দিয়েছে তামিলনাডু রাজ্য ও কেন্দ্রীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী। কিন্তু এখন পর্যন্ত শিশুটিকে উদ্ধারের একাধিক চেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে। সময় যত গড়াচ্ছে উদ্বেগ ততই বাড়ছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, ‘শনিবার সকাল পর্যন্ত বাচ্চাটির কান্নার আওয়াজ পাওয়া যাচ্ছিল। এখন আর কোনও সাড়া পাওয়া যাচ্ছে না। জানা গেছে, রোববার সকাল থেকেই মূল গর্ত থেকে ৩ মিটার দূরে একটি সমান্তরাল গর্ত খুঁড়ে শিশুটিকে উদ্ধারের চেষ্টা চালাচ্ছে উদ্ধারকারীরা।

ভারতীয় টেলিভিশন এনডিটিভির প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, অন্তত ৩০০ জন উদ্ধারকারীর মোট ছয়টি দলে ভাগ হয়ে শিশুটিকে উদ্ধারের চেষ্টা চালাচ্ছেন। উদ্ধারকারীদের বলছেন, কোনও সাড়া না পাওয়া গেলেও শিশুটি এখনো বেঁচে আছে। তবে সে জ্ঞান হারিয়েছে।

এ ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি টুইট বার্তায় বলেছেন, আমার প্রার্থনা সুজিতের সঙ্গেই আছে। উদ্ধার অভিযান নিয়ে তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে আমার কথা হয়েছে। তাকে নির্দেশ দিয়েছি, সুজিতকে জীবনের নিরাপত্তার কথা ভেবে তারা যেন উদ্ধার অভিযান চালায়।