শত্রুদের গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করছে ইরান


শত্রুদের যে কোনো হুমকির কঠোর জবাব দেয়ার জন্য ইরানের সশস্ত্র বাহিনী সদা প্রস্তুত রয়েছে বলে জানিয়েছেন ইরানের সেনা বাহিনীর স্ট্রাটেজিক স্টাডিজ সেন্টারের প্রধান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আহমাদরেজা পুরদাস্তান। তিনি শনিবার তেহরানে এক বক্তৃতায় বলেন, ইরানের চারপাশের সীমান্তবর্তী বিশাল অঞ্চল জুড়ে শত্রুদের সব ধরনের গতিবিধি গভীর পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। খবর পার্স ট্যুডে।

শত্রুদের হামলা প্রতিহত করতে বিভিন্ন ধরনের কারিগরি প্রযুক্তি ও কৌশল অবলম্বন করা হচ্ছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

 জেনারেল পুরদাস্তান বলেন, ইরানের উচ্চ পর্যায়ের সামরিক সক্ষমতার কারণে যুক্তরাষ্ট্রে এখন পর্যন্ত বহুবার হুমকি দেয়া সত্ত্বেও তেহরানের বিরুদ্ধে আগ্রাসন চালানোর সাহস করেনি।

তিনি বলেন, গত জুনে ইরানের আকাশসীমায় অনুপ্রবেশকারী একটি অত্যাধুনিক মার্কিন ড্রোন গুলি করে ভূপাতিত করার ঘটনা ছিল যুক্তরাষ্ট্রের জন্য মারাত্মক শক্তিশালী সতর্কবার্তা। যুক্তরাষ্ট্র ওই সময়ে ইরানের বিরুদ্ধে ‘সীমিত পর্যায়ের’ সংঘাত শুরু করতে চাইলেও মার্কিন ড্রোন ভূপাতিত করার পর যুক্তরাষ্ট্র ইরানের সামরিক শক্তি সম্পর্কে ধারণা পেয়ে যায় বলে তিনি মন্তব্য করেন।

গত ২০ জুন পারস্য উপসাগরের আন্তর্জাতিক পানিসীমা থেকে ইরানের আকাশসীমায় অনুপ্রবেশকারী একটি অত্যাধুনিক মার্কিন গোয়েন্দা ড্রোন ভূপাতিত করে ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসি। ওই ঘটনার জের ধরে ইরানে সীমিত পর্যায়ের হামলা চালানোর নির্দেশ দিয়েও শেষ মুহূর্তে তা প্রত্যাহার করে নেন।

ইরান বারবার বলে এসেছে, কারো বিরুদ্ধে হামলা করার কোনো ইচ্ছা তেহরানের নেই তবে আগ্রাসনের শিকার হলে আগ্রাসী বাহিনীর বিরুদ্ধে কঠোর জবাব দেওয়া হবে।