ইরানের আকাশে ইসরায়েলি যুদ্ধবিমান, কমান্ডার বহিস্কার


ইসরায়েলের একটি যুদ্ধবিমান ইরানের আকাশে ঢুকে ছবি তুলে পালানোর ঘটনায় একজন ঊর্ধ্বতন কমান্ডারকে বহিস্কার করেছে তেহরান। ইসরায়েল যে বিমানটি নিয়ে ইরানে প্রবেশ করে গোপন স্থানের ছিবি তুলে পালিয়ে যায় সেটি মার্কিন প্রযূক্তিতে তৈরি এফ-৩৫ যুদ্ধবিমান।

দ্য ন্যাশনাল ইন্টারেস্ট নামে এক সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, ইসরায়েলের ওই যুদ্ধবিমান ধ্বংস করতে না পারার ব্যর্থতার জন্য বিমানবাহিনীর কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ফারজাদ ইসমাইলকে বহিস্কার করেছেন দেশটির সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ খোমেনি।

কুয়েতভিত্তিক দৈনিক আল জারিদা গত শনিবার এক প্রতিবেদনে প্রথম এই খবর জানায়। চীর প্রতিদ্বন্দ্বী দেশ ইসরায়েলের যুদ্ধবিমান কীভাবে ইরানের আকাশে প্রবেশ করে অক্ষত অবস্থায় ফিরে গেল তার জন্য দায়ী করা হয় কমান্ডার ফারজাদ ইসমাইলকে। ২০১০ সাল থেকে তিনি বিমান বাহিনীর কমান্ডারের দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন।

তার বিরুদ্ধে অভিযোগ ২০১৮ সালের মার্চে ইরানের আকাশে ইসরায়েলের যুদ্ধবিমানের অবাধে প্রবেশ করে স্পর্শকাতর স্থানের ছবি তুলে নিরাপদে ফিরে যায়। কিন্তু তিনি কোনোরকম প্রতিরোধ করতে পারেননি। শুধু তাই নয় এ খবর তিনি সর্বোচ্চ নেতা খোমেনিকে জানাননি। ফলে দীর্ঘ তদন্তের পর তাকে বহিস্কার করা হয়।

প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, ২০১৮ সালের মার্চের ওই ঘটনার তদন্ত করে ইরানের ক্ষমতাধর রেভ্যুলেশনারি গার্ড বাহিনীর গোয়েন্দা বিভাগ এবং গোয়েন্দা মন্ত্রণালয়। যৌথ এই তদন্ত শেষে খোমেনি এই সিদ্ধান্ত নেন। নির্বাহী কমান্ডারকে তার স্থলাভিষিক্ত করা হয়েছে।

ইরানের গোয়েন্দারা তদন্ত করে জানতে পারেন, আধির নামের ইসরায়েলের ওই এফ-৩৫ যুদ্ধবিমান তেহরান, কারাজরাক, স্পাহান, সিরাজ ও বন্দর আব্বাসের আকাশে ঘুরে নির্বিঘ্নে ছবি তুলে ফিরে গেছে। যা ইরানের আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কোনোভাবেই সনাক্ত করতে পারেনি। প্রসঙ্গত, এফ-৩৫ স্টিলথ প্রযূক্তিতে তৈরি হওয়ায় তা রাডার ফাঁকি দিতে সক্ষম।