যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতকে তলব চীনের


_87252918_87252916

তাইওয়ানের কাছে ওয়াশিংটনের অস্ত্র বিক্রির ঘোষণার প্রতিবাদে যুক্তরাষ্ট্রের এক জ্যেষ্ঠ রাষ্ট্রদূতকে তলব করেছে চীন। আজ বৃহস্পতিবার বিবিসি অনলাইনের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়। তাইওয়ানের কাছে ১ দশমিক ৮৩ বিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যের অস্ত্র বিক্রির ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এ ঘোষণায় ওয়াশিংটনের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছে তাইওয়ান। তবে চটেছে বেইজিং। চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স কে লিকে তলব করে বেইজিংয়ের ক্ষোভ ও প্রতিবাদের কথা জানিয়ে দিয়েছেন চীনা ভাইস পররাষ্ট্রমন্ত্রী ঝেং জিগুয়াং। চীনের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, গতকালের বৈঠকে কে লিকে জিগুয়াং বলেছেন, তাইওয়ান চীনের ভূখণ্ডের অবিচ্ছেদ্য অংশ। এ কারণেই তাইওয়ানের কাছে যুক্তরাষ্ট্রের অস্ত্র বিক্রির তীব্র বিরোধিতা করে বেইজিং। একই সঙ্গে বেইজিং বলেছে, ওই অস্ত্রচুক্তি চীনের সার্বভৌমত্ব নিরাপত্তা ও স্বার্থকে দারুণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে। অস্ত্র বিক্রির সঙ্গে জড়িত মার্কিন প্রতিষ্ঠানের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের অঙ্গীকার করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র বলেছে, তাইওয়ানের কাছে অস্ত্র বিক্রির ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্রের দীর্ঘ সময়কার নীতির সঙ্গে সবশেষ অস্ত্রচুক্তিটি সামঞ্জস্যপূর্ণ। তাইওয়ানকে নিজেদের অংশ মনে করে চীন। বেইজিংয়ের আশা, তাইওয়ান একদিন মূল ভূখণ্ডের সঙ্গে একত্র হবে। চীন থেকে ১৯৪৯ সালে আলাদা হয় তাইওয়ান। স্বশাসনে যাওয়ার পর থেকে তাইওয়ানের সঙ্গে চীনের দ্বন্দ্ব চলে আসছে। তাইওয়ান নিজেদের সার্বভৌম মনে করে। ১৯৪৯ সালের পর গত মাসে প্রথমবারের মতো চীন ও তাইওয়ানের প্রেসিডেন্টদের মধ্যে সাক্ষাৎ হয়।