ফিলিস্তিনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়ার পরিকল্পনা!


ফিলিস্তিনের একটি স্কুল। ছবি: সংগৃহীত

 

ফিলিস্তিনে জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থার কয়েকটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করার পদক্ষেপ নিয়েছে ইসরাইল সরকার। ১৯৪৯ সালে প্রতিষ্ঠিত এ বিদ্যালয়গুলোতে বর্তমানে একসঙ্গে ১৬ শতাধিক ফিলিস্তিনি শিশু শিক্ষাগ্রহণ করে। খবর আনাদলুর।

ইসরাইলের একটি হিব্রু সংবাদমাধ্যমের বরাত দিয়ে আনাদলু জানায়, ইসরায়েল আল কুদসের পশ্চিমে ফিলিস্তিন শরণার্থীদের ত্রাণ ও কর্মসংস্থান বিষয়ক সংস্থা (UNRWA) এর ‘আউনারো’ বিদ্যালয়ের কার্যক্রম বন্ধ করতে যাচ্ছে।

সংবাদমাধ্যমের ভাষ্য হল প্রধানমন্ত্রী বিন ইয়ামিন নেতানিয়াহুর কার্যালয়ে আল আল কুদসের পশ্চিমে UNRWA এর সকল কার্যক্রম বন্ধে সম্প্রতি জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের বেশকিছু রুদ্ধদ্বার বৈঠক অনুষ্ঠিত।

চ্যানেল সেভেন জানায়, এমন কয়েকটি মিটিংয়ে স্বয়ং নেতানিয়াহুও উপস্থিত ছিলেন।

চ্যানেল সেভেন আরও জানায়, সাবেক প্রধানমন্ত্রী এহুদ বারাকের পরিকল্পনা মাফিক ফিলিস্তিনি সংস্থা ইউএনআর ডব্লিউএ এর ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

পরিকল্পনা অনুযায়ী, সংস্থাটির বিদ্যালয়গুলো চিহ্নিতকরণ ও বাতিলকরণ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে। সংস্থাটির সব কার্যক্রম বন্ধ করে দেওয়া হবে।

সেভেন টিভি আরও জানায়, নতুন ভবন নির্মাণ না হওয়া পর্যন্ত বিদ্যালয়গুলোর জন্য অন্য ভবন চিহ্নিতকরণ কিংবা সাময়িক সময়ের জন্য অন্য ভবন ভাড়া নেওয়া হবে।

জানা যায়, গত বছর প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প কর্তৃক UNRWA এর অর্থায়ন বাতিল করার পর ইসরাইল এই পরিকল্পনা গ্রহণ করে।

আমেরিকা কর্তৃক বাৎসরিক সহায়তা বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়ার পর জাতিসংঘ সংস্থাটি (UNA) ইতিহাসের সবচেয়ে বড় আর্থিক সংকটের সম্মুখীন হয়েছে। যার পরিমাণ প্রায় ৩৬৫ মিলিয়ন ডলার।