পাকিস্তানকে আবারও কড়া বার্তা যুক্তরাষ্ট্রের


পাকিস্তানকে দক্ষিণ এশিয়ার শান্তি বজায় রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে হবে বলে আবারও হুঁশিয়ারি দিলো যুক্তরাষ্ট্র।

৪ ডিসেম্বর, মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও প্রতিরক্ষাসচিব জেমস ম্যাটিস স্পষ্ট বুঝিয়ে দিয়েছেন, এ বিষয়ে পাকিস্তান কতটা উদ্যোগী হবে তার উপরে পাকিস্তান ও যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্কের ভবিষ্যৎ নির্ভর করছে। ইন্ডিয়া টাইমসও আনন্দবাজারের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে চিঠি লেখেন। সেই চিঠিতে আফগানিস্তানে নিযুক্ত মার্কিন দূত জালমে খলিলজাদকে সাহায্য করতে ইমরানকে অনুরোধ করেছেন ট্রাম্প। যুক্তরাষ্ট্র চাচ্ছে আলোচনার মাধ্যমে আফগানিস্তানে তালেবানের সঙ্গে লড়াই শেষ করতে। আর সেই প্রক্রিয়া শুরু করতেই খলিলজাদকে বিশেষ দূত হিসেবে নিয়োগ করা হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট এ বিষয়ে স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দিয়েছেন, পাকিস্তান এ বিষয়ে কতটা সাহায্য করে তার ওপরে পাকিস্তান ও যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্কের ভবিষ্যৎ অনেকটাই নির্ভর করছে। আফগানিস্তান নিয়ে আলোচনার জন্য মঙ্গলবার পাকিস্তানে যান খলিলজাদ।

ওয়াশিংটনে ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারামনের সাথে এ দিন মার্কিন প্রতিরক্ষাসচিব জেমস ম্যাটিস বৈঠক করেন। সেই বৈঠকের আগে ম্যাটিস বলেন, ‘আমার মনে হয় প্রত্যেক দায়িত্বশীল দেশের উচিত দক্ষিণ এশিয়া নিয়ে আফগান প্রেসিডেন্ট আশরফ ঘানি, ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও জাতিসংঘের উদ্যোগকে সমর্থন করা।’ নাম না করলেও ম্যাটিসের ইঙ্গিতও যে পাকিস্তানের দিকে তা নিয়ে সন্দেহ নেই কূটনীতিকদের।