নায়ক হয়ে এসে পিএসজিকে রক্ষা করলেন ডি মারিয়া


নেইমার-এমবাপ্পে-কাভানিদের নিয়েই নাপোলির বিপক্ষে মাঠে নামে প্যারিস সেইন্ট জার্মেই (পিএসজি)। কিন্তু মান রাখতে পারেননি তাদের কেউ। বরং ম্যাচের অতিরিক্ত সময়ে (৯০+৩) গোল করে দলকে নিশ্চিত পরাজয়ের হাত থেকে রক্ষা করে নায়কের ভূমিকায় অবতীর্ণ হন অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া। প্যারিস জায়ান্টদের আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকারের করা গোলের সৌজন্যেই যে পিএসজি এদিন ২-২ ব্যবধানে ড্র করে নাপোলির সঙ্গে।

নিজেদের মাঠে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের গুরুত্বপূর্ণ এই ম্যাচ শুরুর ২৯ মিনিটেই পিছিয়ে পড়ে পিএসজি। দারুণ এক গোল করে নাপোলিকে প্রথম এগিয়ে দেন লরেঞ্জো ইনসিনে। তবে দ্বিতীয়ার্ধের ৬১ মিনিটে নিজেদের জালেই বল জড়িয়ে দেন নাপোলির মারিও রুই। ফলে সমতায় ফিরে পিএসজি।

কিন্তু ম্যাচের ৭৭ মিনিটে নাপোলিকে আবারও এগিয়ে দেন ড্রায়েস মার্টেন্স। এরপর নির্ধারিত ৯০ মিনিট পর্যন্ত আর কোনো গোল নেই। যে কারণে জয় নিয়েই বাড়ি ফেরার স্বপ্ন দেখতে শুরু করে ইতালিয়ান জায়ান্টরা। কিন্তু অতিরিক্ত সময়েই গোল করে নাপোলির স্বপ্ন ভেঙে চুরমার করে দেন অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া।

পিএসজির সঙ্গে নাপোলি ড্র করায় ‘সি’ গ্রুপের শীর্ষে উঠে গেছে লিভারপুল। বুধবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগের আরেক ম্যাচে ইংলিশ ক্লাব লিভারপুল ৪-০ গোলে রীতিমতো উড়িয়ে দেয় রেড স্টার বেলগ্রেডকে। এই ম্যাচে জোড়া গোল করেন অলরেডদের মিসরীয় ফরোয়ার্ড মোহাম্মদ সালাহ। ম্যাচের ৪৫ এবং ৫১ মিনিটে গোল দুটি করেন তিনি। দ্বিতীয় গোলটি আসে পেনাল্টি থেকে। এই ম্যাচেই লিভারপুলের হয়ে ৫০তম গোলের মাইলফলক স্পর্শ করেন সালাহ।

তার আগে এবং পরে লিভারপুলের হয়ে বাকি দুটি গোল করেন রবার্তো ফিরমিনো এবং সাদিও মানে। ম্যাচ শুরুর ২০ মিনিটে ব্রাজিলিয়ান তারকা ফিরমিনো প্রথম গোল করে লিভারপুলকে এগিয়ে দেন। মাঝে সালাহ ম্যাজিকের পর ৮০মিনিটে দলের হয়ে চতুর্থ গোলটি করেন সাদিও মানে।