ভারত ও চীনের নিরাপত্তা চুক্তিতে স্বাক্ষর


ভারত ও চীনের মধ্যে শুরু হলো নতুন পর্ব। ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং এবং চীনের অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তাবিষয়ক মন্ত্রী ঝাও কেঝি এই প্রথম একটি দ্বিপাক্ষিক নিরাপত্তা সহযোগিতাসংক্রান্ত চুক্তিতে স্বাক্ষর করলেন।

২২ অক্টোবর, সোমবার দিল্লিতে এ চুক্তি সই হয়। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এ বিষয়ে ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘সন্ত্রাস দমন, সংঘটিত অপরাধ, মাদক চোরাচালানের মতো ক্ষেত্রগুলোতে দুই দেশের মধ্যে সহযোগিতা এবং আলোচনা বাড়ানোর জন্য এই চুক্তি খুবই কার্যকরী।’

চুক্তির মধ্যে কী রয়েছে তা নিয়ে ভারত বা চীন কেউই মুখ খোলেনি। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে শুধু বলা হয়েছে, দুই দেশের মধ্যে নিরাপত্তা ক্ষেত্রে সহযোগিতা বাড়ানোর একটি বিস্তীর্ণ জায়গা রয়েছে। এ  উদ্যোগের মাধ্যমে সেই জায়গাটিকেই বিস্তৃত করা হবে।

দেশটির কূটনৈতিক সূত্রে জানা গেছে, নয়াদিল্লি দুটি বিষয়কে অগ্রাধিকার দিচ্ছে। একটি হলো পাকিস্তানভিত্তিক জঙ্গি সংগঠন জইশ-ই মোহাম্মদের প্রধান মাসুদ আজহারকে রাষ্ট্রপুঞ্জের নিষিদ্ধ জঙ্গি তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা। আরেকটি ভারতীয় বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন ইউনাইটেড লিবারেশন ফ্রন্ট অব আসামের (উলফা) সামরিক কমান্ডার পরেশ বড়ুয়াকে ফেরত আনতে চীনের হস্তক্ষেপ দাবি করবে কেন্দ্র।