রিয়াল মাদ্রিদ ৮, বার্সেলোনা ৩


ব্যালন ডি’অরের সংক্ষিপ্ত তালিকা প্রকাশ করেছে কর্তৃপক্ষ। বরাবরের মতোই এই তালিকায়ও প্রাধান্য স্প্যানিশ লা লিগার। ৩০ জনের মধ্যে ১৪ জনই রয়েছেন স্পেনের লিগে খেলা ফুটবলার। এর মধ্যে সর্বোচ্চ প্রভাব রিয়াল মাদ্রিদের। দুইয়ে রয়েছে তাদেরই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী বার্সেলোনা।

টানা তিনবার উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগজয়ী রিয়ালের আট সদস্য রয়েছেন ব্যালন ডি’অরের তালিকায়। তারা হলেন গ্যারেথ বেল, করিম বেনজেমা, থিবো কোর্তোয়া, ইসকো, মার্সেলো, লুকা মদ্রিচ, সার্জিও রামোস ও রাফায়েল ভারানে।

যেখানে রিয়াল মাদ্রিদের দাপট, সেখানে বার্সার প্রভাব তেমন নেই বললেই চলে। এই তালিকায় মাত্র তিনজন রয়েছেন কাতালান ফুটবলার। তারা হলেন লিওনেল মেসি, লুইস সুয়ারেজ ও ইভান রাকিটিচ। অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদেরও তিনজনের নাম রয়েছে।

ব্যালন ডি’অরে গত এক দশক ধরেই রাজত্ব করছেন লিওনেল মেসি ও ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। এই পুরস্কারটাকে যেন নিজেদের সম্পত্তি বানিয়ে ফেলেছেন তারা। তবে গত এক দশকের চিত্রনাট্যের বদল হতে পারে এবার, যার প্রমাণ দেখা গেছে উয়েফার সেরা ফুটবলার ও ফিফার দ্য বেস্ট অ্যাওয়ার্ডে। মেসি-রোনালদোকে হটিয়ে এই প্রথম দুটি পুরস্কার জিতেছেন রিয়াল মাদ্রিদের ক্রোয়েশিয়ান মিডফিল্ডার লুকা মদ্রিচ।

উয়েফার বর্ষসেরা ও ফিফার দ্য বেস্টের মতো ব্যালন ডি’অরের ক্ষেত্রেও কী গত ১০ বছরে রোনালদো ও মেসির পর নতুন নাম আসবে? ফুটবলপ্রেমীদের অপেক্ষা এখন সেটাই দেখার।

৩০ জনের তালিকা: সার্জিও অ্যাগুয়েরো, অ্যালিসন বেকার, গ্যারেথ বেল, করিম বেনজেমা, এডিনসন কাভানি, থিবো কোর্তোয়া, ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো, কেভিন ডি ব্রুইন, রবার্তো ফিরমিনো, দিয়েগো গোডিন, অ্যান্থনিও গ্রিজম্যান, এডেন হ্যাজার্ড, ইসকো, হ্যারি কেন, এনগোলা কান্তে, হুগো লরিস, মারিও মানজুকিচ, সাদিও মানে, মার্সেলো, কিলিয়ান এমবাপ্পে, লিওনেল মেসি, লুকা মদ্রিচ, নেইমার, জ্যান ও’ব্ল্যাক, পল পগবা, ইভান রাকিটিচ, সার্জিও রামোস, মোহামেদ সালাহ, লুইস সুয়ারেজ ও রাফায়েল ভারানে।