অ্যাসিস্টে নেইমারের হ্যাটট্রিক, উড়ে গেল এলসালভাদর


দ্বিতীয় প্রীতি ম্যাচেও জয়ের স্বাদ পেয়েছে ব্রাজিল। যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে ২-০ গোলে জয়ের পর বুধবার সকালে নেইমার-কোটিনহোরা ৫-০ ব্যবধানে রীতিমতো উড়িয়ে দিয়েছে তুলনামূলক খর্ব শক্তির দল এলসালভাদরকেও।

এই ম্যাচে আলো ছড়িয়েছেন রিচার্লিসন। জোড়া গোল করেছেন এভারটনের এই ব্রাজিলিয়ান। এ ছাড়াও একটি করে গোল করেছেন নেইমার, মারকুইনহোস এবং কোটিনহো।

গোল উৎসবের শুরুটা করেন ব্রাজিলের অধিনায়ক নেইমার। ম্যাচের চতুর্থ মিনিটেই পেনাল্টিতে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন তিনি। ব্রাজিলের জার্সিতে এটা নেইমারের ৫৯তম গোল। এই গোলের সৌজন্যে ব্রাজিলের সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা রোনালদো আর পেলের আরও কাছে চলে গেলেন নেইমার।

ম্যাচের ১৬ মিনিটেই ব্রাজিলের গোল ব্যবধান দ্বিগুণ করেন রিচার্লিসন। সেলেসাওদের জার্সিতে নিজের প্রথম ম্যাচেই গোল করলেন এভারটনের এই প্রতিভাবান স্ট্রাইকার। নেইমারের অ্যাসিস্টে নিজের দ্বিতীয় ম্যাচেই ব্রাজিলের জার্সিতে প্রথম গোল করেন রিচার্লিসন।

প্রথমার্ধের ৩০মিনিটে ব্রাজিলের গোল ব্যবধানটাকে ৩-০ তে নিয়ে যান ফিলিপে কোটিনহো। বার্সেলোনার এই ব্রাজিলিয়ান তারকার গোলেও অ্যাসিস্ট করেন নেইমার। এর ফলে তিন গোলে এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় তিতের দল।

দ্বিতীয়ার্ধেও দাপট অব্যাহত রাখে পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। ম্যাচের ৫০ মিনিটে দলের চতুর্থ আর ব্যক্তিগত দ্বিতীয় গোল করেন রিচার্লিসন। ম্যাচের বয়স যখন ৯০ মিনিট তখন এলসালভাদরের জালে শেষ পেরেকটি ঠুকে দেন মারকুইনহোস। নেইমারের কর্নার কিক থেকে গোল করেন তিনি। এর ফলে ৫-০ ব্যবধানের বড় জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে তিতের শিষ্যরা।

অধিনায়ক হিসেবে এটা নেইমারের দ্বিতীয় ম্যাচ। এই ম্যাচেও নেইমারের পারফরম্যান্স মুগ্ধ করেছে ফুটবলপ্রেমীদের। কেননা, এলসালভাদরের বিপক্ষে করা ব্রাজিলের পাঁচ গোলের চারটির পাশেই যে নেইমারের নাম। নিজে একটি করে দলকে প্রথম এগিয়ে দেওয়ার পর সতীর্থদের দিয়ে আরও তিন গোল করাতেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন তিনি।

আগামী বছরেই ব্রাজিলে অনুষ্ঠিত হবে কোপা আমেরিকা। মূলত ল্যাটিন আমেরিকার শ্রেষ্ঠত্বের টুর্নামেন্টেরই প্রস্তুতি-পর্ব এই প্রীতি ম্যাচ। যুক্তরাষ্ট্র-এলসালভাদরের পর আগামী মাসে সৌদি আরব এবং চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী আর্জেন্টিনার বিপক্ষেও দুটি প্রীতি ম্যাচ খেলবে নেইমারের ব্রাজিল।