‘৯৪ মিনিটে হারের পরও এটা জাপানিজদের ড্রেসিংরুম’


ম্যাচে হারের পর কান্না থামছিল না জাপান ফুটবল দলের সদস্যদের। বেলজিয়াম যখন উদযাপনে ব্যস্ত, তখন প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে গলা আটকে যাচ্ছিল জাপানের অধিনায়কের। অন্যরা হলে হয়তো ব্যর্থতার গ্লানি নিয়ে কোনো রকমে ব্যাগ গুছিয়ে হোটেলের পথ ধরত। কিন্তু জাপান আলাদা। রাশিয়া বিশ্বকাপ থেকে বিদায়ের দিনেও মাঠ ছাড়ার আগে ড্রেসিংরুম ঝকঝকে-তকতকে করে রেখে গেছে।

জাপান ফুটবল দলের এমন কাণ্ড রাশিয়া বিশ্বকাপে আলোচনা ফেলে দিয়েছে। জাপান দল ড্রেসিংরুম ত্যাগ করার পর সেখানে পরিষ্কার করতে যান পরিচ্ছন্নকর্মীরা। কিন্তু গিয়ে অবাক হতে হয় তাদের। পুরো ড্রেসিংরুম এতটাই পরিষ্কার যে, মনে হবে কখনো কারোর পা-ই পড়েনি এখানে। সবকিছু সুন্দর করে গুছিয়েও রাখা হয়েছে।

পরে ব্যাপারটি জানানো হয় কর্তৃপক্ষকে। বাকিরাও এসে এসব দেখে অবাক হন। শুধু তাই নয়, জাপান ফুটবল দল ড্রেসিংরুমে একটি চিঠিও রেখে গেছে। এতে তারা রাশিয়াকে ধন্যবাদ জানিয়েছে এই আয়োজনের জন্য।

এসবের ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশ করেন ফিফার কো-অর্ডিনেটর প্রিসিলা জানসেসন। তিনি ছবির সঙ্গে লেখেন, ‘৯৪ মিনিটে হারের পরও এটা জাপানিজদের ড্রেসিংরুম। জাপানের সমর্থকদেরকেও ধন্যবাদ। তারা খেলা শেষে স্টেডিয়াম পরিষ্কার করেছে। সব দলের জন্যই এটা দারুণ এক উদাহরণ।’

চলতি বিশ্বকাপে জাপানিজরা তাদের পরিচ্ছন্নতার উদাহরণ আগেই দিয়েছে। গ্যালারিতে যেসব সমর্থকরা খেলা দেখতে এসেছিলেন, প্রতি ম্যাচ শেষেই তারা গ্যালারি থেকে পরিত্যক্ত বোতল, চিপসের প্যাকেট, গ্লাস; সবকিছু কুড়িয়ে নিয়ে ডাস্টবিনে ফেলে দিয়েছিলেন। কিন্তু খেলোয়াড়দের পক্ষ থেকে এমন উদাহরণ সবাইকে আরও বেশি বিস্মিত করেছে।

এর আগে এলিমিনেটর রাউন্ডে বেলজিয়ামের বিপক্ষে ২-০ গোলে এগিয়ে থেকেও শেষ পর্যন্ত ৩-২ গোলে হেরে যায় জাপান দল।