বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে আলোচনায় আগ্রহী অর্থমন্ত্রী


54073_160

ভ্যাট বিষয়ে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ও বেতন স্কেল নিয়ে সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের সাথে আলোচনায় আগ্রহ প্রকাশ করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। তিনি বলেছেন,ভ্যাট নিয়ে আলোচনায় বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর জন্য দ্বার রুদ্ধ নয়। তারা আমাদের সাথে আলোচনায় বসতে পারে। বেতন স্কেল নিয়ে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর আন্দোলন ঠিক নয় বলে অভিহিত করে মুহিত বলেন, তারাও এ বিষয়ে নিয়ে আমাদের সাথে আলোচনায় করতে পারে।

গতকাল বিকেলে সচিবালয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান। বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

‘বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো সব ছুটি ঘোষণা করা হচ্ছে’ সাংবাদিকদের এমন কথার জবাবে মুহিত বলেন, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর দ্বার তো রুদ্ধ নয়। আমি আশা করি তারা সরকারের সাথে আলোচনায় বসবে। তারা আমাদের সাথে আলোচনা করতে পারে।

‘ভ্যাট আরোপের বিষয়টি পুনর্বিবেচনা করা হবে কি-না’ জানতে চাইলে তিনি বলেন, পুনর্বিবেচনা তো সব সময়েই করি। এটা কোনো রিজিড (কঠোর) পজিশন নয়। আমরা একটা পদক্ষেপ নিয়েছি। উই উইল জাস্টিফাইড।

এ বিষয়ে তোফায়েল আহমেদ সাংবাদিকদের বলেন, বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এ বিষয়ে বাস্তবসম্মত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। কোমলমতি ছাত্রদের কথা আমাদের ভাবতে হবে।

সরকারি বিশ্ববিদ্যায়য়ের শিক্ষকদের পে-স্কেল প্রসঙ্গে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘এটা নিয়ে বসতে হবে। তাদের পদের ৫/৬টা ধাপ আছে। সেগুলোর পিরামিডটা কোথাও হয়তো কম-বেশি আছে। নিচের প্রভাষকের চেয়ে ওপর দিকে সহযোগি অধ্যাপক ও অধ্যাপকের সংখ্যা অনেক বেশি।

‘সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা যে আন্দোলন করছেন, সেটা ঠিক নয়’ আবারো এমন দাবি করে তিনি বলেন, ‘বেতন কমিশন একটা প্রতিবেদন দিয়েছে। তাদের সম্মান বা মর্যাদার কোনো হানি হয় নাই।’

উল্লেখ্য, সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের পে-স্কেল সংক্রান্ত বিষয়টি ‘বেতন বৈষম্য নিরসন সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি’র বৈঠকে আলোচনার কথা রয়েছে। পদাধিকার বলে এ কমিটির প্রধান হচ্ছেন অর্থমন্ত্রী। সেখানেই এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

কিন্তু সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকরা অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের নেতৃত্বাধীন কমিটির সাথে আলোচনায় বসবেন না বলে আজ এক সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছেন।

এ বিষয়ে অর্থমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি বলেন, না, না, ঠিক আছে। না বসলে, না বসবে। তবে অর্থমন্ত্রীর নেতৃত্বাধীন এ কমিটিই সব সময় কাজ করে আসছে।

তোফায়েল আহমেদ এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘তারা যদি বসতে না চান, তাহলে কী করার আছে!’

উল্লেখ্য, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের টিউশন ফি’র ওপর চলতি অর্থবছরের বাজেটে সাড়ে সাত শতাংশ ভ্যাট প্রত্যাহারের দাবি গত কয়েকদিন ধরে দেশের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়েল শিক্ষার্থীরা আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে। অন্যদিকে, স্বতন্ত্র বেতন স্কেল ও সিলেকশন গ্রেড পুনর্বহালের দাবিতে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়েল শিক্ষকরাও গত একমাস ধরে আন্দোলন করে আসছেন।