আবারও তুরস্কের প্রেসিডেন্ট হলেন এরদোয়ান


টানা দ্বিতীয়বারের মতো তুরস্কের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলেন রিসেপ তাইপ এরদোয়ান। অনানুষ্ঠানিক ফলাফলে এরদোয়ানের স্পষ্ট বিজয়ের চিত্র পাওয়া গেলেও এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচনের ফলাফল এখনো ঘোষণা করা হয়নি।

২৪ জুন, রবিবার অনুষ্ঠিত ভোটে এরদোয়ানের একে পার্টির নেতৃত্বাধীন জোট পিপলস অ্যালায়েন্স বিরোধী জোট ন্যাশনাল অ্যালায়েন্সের চেয়ে এখন পর্যন্ত অনেক এগিয়ে আছে।

ইতোমধ্যে সংসদীয় আসনের প্রায় ৯৫ শতাংশ ভোট গণনা শেষ হয়েছে। প্রাপ্ত ফলাফলে দেখা গেছে  এরদোয়ানের নেতৃত্বাধীন জোট পিপলস অ্যালায়েন্স পেয়েছে ৫৩ দশমিক ৮৪ শতাংশ ভোট।

প্রেসিডেন্ট নির্বাচনেও এরদোয়ান প্রতিদ্বন্দ্বী মুহাররেম ইনজের চেয়ে স্পষ্ট ব্যবধানে এগিয়ে আছেন। প্রাপ্ত ফলাফলে দেখা যাচ্ছে প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান পেয়েছেন ৫২ দশমিক ৮৩ শতাংশ ভোট। আর মুহাররেম ইনজে পেয়েছেন ৩০ দশমিক ৬৮ শতাংশ ভোট।

তুরস্কের রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা এনাদোলু জানিয়েছে প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান ৫২ দশমিক ৫ শতাংশ, আর ইনজে পেয়েছেন ৩০ দশমিক ৭ শতাংশ ভোট।

এদিকে এরদোয়ান নিজেকে বিজয়ী হিসেবে ঘোষণা করেছেন। তাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন কাতারের আমির, হাঙ্গেরির প্রধানমন্ত্রী, আজারবাইজানের প্রেসিডেন্ট, ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট ও আল বেনিয়ার  প্রধানমন্ত্রী।

২০১৪ সালে প্রথমবারের মতো প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার আগে একটানা ১১ বছর দেশটির প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন এরদোয়ান।

২০১৯ সালে এ নির্বাচনটি অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও এরদোয়ানের ইচ্ছাতেই নির্বাচন এগিয়ে আনা হয়। নানা কারণে এবারের নির্বাচন ছিল তুরস্কে একচ্ছত্র আধিপত্য বিস্তারকারী এরদোয়ানের জন্য সত্যিকারের চ্যালেঞ্জ। এবারের নির্বাচনে মোট চারজন প্রার্থী প্রেসিডেন্ট পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন। তাদের মধ্যে মুহাররেম ইনজের সঙ্গে এরদোয়ানের তুমুল প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে বলে ধারণা করেছিল সবাই।

অন্যদিকে প্রেসিডেন্টের ক্ষমতা বাড়িয়ে আইন করার পর এটি দেশটির প্রথম নির্বাচন, সে কারণেও এ নির্বাচনের গুরুত্ব ছিল অনেক। প্রেসিডেন্টের হাতে ‘কুক্ষিগত ক্ষমতাকে’ তুরস্কের সাধারণ জনগণ কোন চোখে দেখে তা-ও এই নির্বাচনে প্রতিফলিত হবে বলে ধারণা করা হচ্ছিল।

অনানুষ্ঠানিক ফলাফলে স্পষ্টত এগিয়ে থাকার পর নিজের বাসভবনে দেওয়া এক ভাষণে এরদোয়ান বলেন, ‘অনানুষ্ঠানিক ফলাফলে পরিষ্কার হয়েছে যে প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালনে জাতি আমার ওপরই আস্থা রেখেছে।’