ফাইনালের আগে রিয়ালের ড্রেসিংরুমটা কেমন


উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের যুগে প্রথম দল হিসেবে টানা দুইবার শিরোপা জিতে গত মৌসুমেই নতুন ইতিহাস গড়ে রিয়াল মাদ্রিদ। এই তথ্যটা ফুটবলপ্রেমী প্রায় সবার জানা। স্প্যানিশ জায়ান্টদের সামনে এবার শুধু নিজেদেরকেই ছাড়িয়ে যাওয়ার হাতছানি।

শনিবার কিয়েভে ইউরোপ সেরার এই টুর্নামেন্টের ফাইনালে ইংলিশ ক্লাব লিভারপুলকে হারাতে পারলেই প্রথম দল হিসেবে টানা তিনবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জয়ের অবিস্মরণীয় কীর্তি গড়বে রিয়াল মাদ্রিদ। জিনেদিন জিদানের শিষ্যরাও ঠিক সেপথেই হাটছেন যেন।

মঙ্গলবার উন্মুক্ত সংবাদ সম্মেলনে রিয়াল মাদ্রিদের অধিনায়ক সার্জিও রামোসও গাইলেন নিজেদের ঐক্যের গান। নিজেদের বর্তমান ড্রেসিংরুমের সুন্দর আবহাওয়ার উদাহরণ টেনে রিয়ালের স্প্যানিশ তারকা জানালেন, তারা লিভারপুলকে হারাতে কতটা আত্মবিশ্বাসী।

এ প্রসঙ্গে সার্জিও রামোস খুব সহজ কথায় বলেন, ‘আগে হয়তো আমাদের ড্রেসিংরুমে বিভাজান ছিল কিন্তু এখনকার আবহাওয়া সত্যিই দারুণ।’

এখানেই থামেননি রিয়াল দলপতি। তার মতে, ‘এখানে কারও মনে অহংবোধ নেই। দলের মধ্যে ব্যক্তিগত স্বার্থপরতার বিষয়টাও দেখা যায় না আর। দল জিতলে সেটা এখন দলীয় প্রচেষ্টারই ফসল মনে হয়। তেমনি ব্যক্তিগত জয়গুলোও মনে হয় দলের সকলের।’

তারপরও সমালোচনার শিকার হতে হয় রামোসদের। কিন্তু রিয়াল অধিনায়কের সাফ জবাব, ‘এসব সমালোচনা মোটেও আমাদের লক্ষ্যভ্রষ্ট করতে পারেনি। অন্যদিকে প্রশংসাও আমাদেরকে কখনো পরিতৃপ্ত করতে পারেনি।’

সর্বোচ্চ ১২বার উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপা উঁচিয়ে ধরেছে রিয়াল মাদ্রিদ। লিভারপুলকে হারালে সেই সংখ্যাটা বেড়ে দাঁড়াবে ১৩। গত পাঁচ বছরের মধ্যে চারবার ইউরোপ সেরার এই টুর্নামেন্টের মুকুট পড়বে জিনেদিন জিদানের দল।

রিয়াল কী পারবে? নাকি স্প্যানিশ জায়ান্টদের দাপট থামিয়ে নতুন ইতিহাস গড়বে মোহাম্মদ সালাহর দল লিভারপুল? ফুটবলপ্রেমীদের অপেক্ষা এখন সেটাই দেখার।